কার লাভ কার ক্ষতি

১৩ মার্চ, ২০১৩
বুধবার, সন্ধ্যা ৬ টা ১৫
ডিওএইচএস, মহাখালি

আকাশ হঠাত মেঘলা হয়ে যাওয়ার পর
অনন্ত শূণ্যতায় আমার বুক হু হু করে উঠে।
তুমি কতো দূরে আছো,
তা মেপে দেখা যায়না। মেপেও কোনো লাভ
হবেনা; তুমি আর আমার নেই একটুও।
ছিলেও না কোনোকালে। যদিও বারবার

আমি ভেবে গেছি- তুমি শুধুমাত্র আমার।
আপদমস্তক। শেষের দিনগুলো বড় বেশি করে
তোমার ছিলো, ইচ্ছে মতো বুঝিয়ে গেছো
আমার ভাবনা কতো ভুল। আমার চিন্তা
কতো অগভীর। তারপর কেটে ফেলেছো
পৃথিবীর সবচেয়ে শক্ত বাধনটাও।
বৃষ্টি ঝড়ে যাবে যে কোনো সময়;
আমি জানিন- তুমিহীন বৃষ্টি ফোটায়
আমার কেমন লাগবে! খুব কম সময়
তুমি আমার কাছে ছিলে। তারচেয়েও বহু
কম, তুমি আমার ছিলে। তবুও তুমি ছাড়া
আমার কোনো অনুভূতি নেই। একটা লেখাকেও
পারিনা তোমার থেকে দূরে রাখতে।
আকাশের মেঘ-পাগলামী বেড়েই চলছে,
এ দিকে তোমার ছবিটা স্পষ্ট থেকে স্পষ্টতর
হয়ে উঠছে হৃদয়ের আয়নায়।
এই যে, অনন্ত শূণ্যতায় ডুবিয়ে গেছো;
কী লাভ হয়েছে তোমার? আমারই বা
কী ক্ষতি হয়েছে?
এই বৃষ্টিবেলায় আমার খুব কাঁদতে ইচ্ছে করে।
কল্পনায় তোমাকে বুকে জড়িয়ে…

Leave a Reply