বহুদিন পর

৬ ডিসেম্বর ২০১২, বৃহস্পতিবার
বিকাল ৩ টা ২৫।


বহুদিন পরে একদিন হয়তো আবার তুমুল বৃষ্টি হবে।
আমার জানলার কাচে লেগে থাকবে
সে বৃষ্টির দূর্বোধ্য ফোটারা। বাইরে ঠান্ডা বাতাস
বইবে খুব। সে ঠান্ডা আমাকে ছুয়ে যাবে।
আমাকে কাপিয়ে দিবে প্রচন্ডভাবে।
আমি থরথর করে কাপবো। আমার প্রিয় একাকিত্বকে
কোলে নিয়ে নাচবো। সে নাচের কোনো মুদ্রা থাকবেনা।
শুধু হাত পা ছোড়াছুড়ি করবো আমি!
সে নাচ থাকবে উচ্ছৃঙ্খল। আমার মতো।
আমার জীবনের মতো। আমার কবিতার মতো।
লিরিকের মতো। গল্পের। আমার ক্রিকেটের মতো।
তারপর বৃষ্টি থামবে। থেমে যাবে। বৃষ্টির ফোটারা
শুকিয়ে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।
অস্তিত্বহীন হয়ে যাবে। আমার আবার
ইচ্ছে করবে বৃষ্টিকে খুব ঘৃণা করি।
আমার ইচ্ছে করবে বৃষ্টির মুখোমুখি দাড়িয়ে যেতে।
কিন্তু সব শেষে আমার আসলে
আর কিছু করা হবেনা। এটা করবো। ওটা করবো।
এমন করে করে আমার করার খাতাটা খা খা শুণ্যতায় ভরে থাকবে।
তখন চারপাশে জমে উঠবে ভালোবাসার খেল।
তা দেখে দেখে আমার মন নতুন করে
ভালোবাসায় পুড়তে চাইবে। খুজে ফিরবে
হলুদ রঙের আগুন। যে আগুনের সোনা রঙ আঙুল থাকবে।
মিষ্টি গন্ধের নি:শ্বাস থাকবে।
অসহ্য সুন্দর চোখ থাকবে। ফাসি দিয়ে মরার মতো
লম্বা চুল থাকবে। হা হা হা হা…
মনের চাওয়াটা আমি পূর্ণ করতে পারবোনা।
এখনকার মতোই অক্ষম-অযোগ্য থাকবো তখনো।
অবশ্য তখন তো আমার ভালোবাসায় ভীষণ রকম ভয়…

Leave a Reply